10 Steps to Create Web Site Loading Speed Quicker

10 Steps to Create Web Site Loading Speed Quicker

Nowadays, the way to speed up website page loading time could be a burning question, despite anyone’s business or niche. Restrains in loading an internet site quicker will demotivate the potential purchasers or customers lose interest from browsing your page. They’ll jump back to the search outcomes so click through to your competitors’ page. So you have to focus your website loading speed quicker.

Read More »

What is the difference between WordPress.com and WordPress.org?

What is the difference between WordPress.com and WordPress.org?

WordPress.com – A new user has two options for starting a WordPress site: WordPress.com and WordPress.org. While both of these offer the popular WordPress site-building and content management system. There is a difference knowing those differences can help you make the right choice for your website and WordPress hosting.

Read More »

আপনার ব্যবসার জন্য একটি ওয়েব সাইটের প্রয়োজনিয়তা কতটুকু?

আপনার ব্যবসার জন্য একটি ওয়েব সাইটের প্রয়োজনিয়তা কতটুকু?

আপনার ব্যবসার জন্য একটি ওয়েব সাইটের প্রয়োজনিয়তা কতটুকু?

অনেক ছোট ছোট ব্যাবসা প্রতিষ্টান বা যে সব ব্যাবসায় প্রতিষ্টান নতুন তৈরি হয়েছে তারা তাদের ব্যাবসায় সচল করা বা প্রসারিত করার জন্য চর্বি জড়ানের মত কাজ করে থাকে। প্রয়োজন এবং জরুরি বিষয়গুলোর উপর প্রধান্য দিয়ে থাকে। যখন যত প্রয়েজন ক্রমাগতভাবে টাকা ব্যায় করে। অথচ ছোট ব্যবসায়িরা কেন তারা তাদের একটা ওয়েবসাইট থাকা কে বিলাসিতা মনে করছে। তারা মনে করছে সেটা ছারাই তাদের ব্যাবসা চালিয়ে যেতে সক্ষম। এমনকি তারা বিশ্বাস করে অনলাইনে তাদের প্রডাক্ট উপস্তাপন করার জন্য ফেসবুক-ই যথেষ্ঠ। মনে করে মোবাইলে ফোন বা গতানুগতিক মেইল তাদের প্রডাক্ট ব্রিক্রি করতে সাহায্য করতে পারে।কিন্তু সত্যি কথা হচ্ছে, একটি ব্যাবসায় কে উপস্থাপন করার জন্য এক মাত্র উপায় হচ্ছে্ একটি প্রফেশনাল ওয়েবসাইট তৈরি করা।

 নিচে আমি ধাপে ধাপে বর্ননা করছি আপনার প্রতিষ্টানে কেন একটি ওয়েবসাইট প্রয়োজন:

১. একটি কার্যকর ওয়েবসাইটই হচ্ছে আপনার প্রতিষ্টানের মূল ভিত্তি।এটি কোম্পানির গুরুত্তপূর্ণ তথ্য বহন করে এবং একজন কাস্টোমার জানতে পারে আপনার কাছে কি আছে। আপনার ওয়েবসাইট আপনার কোম্পানির একটি প্রবেশ পথ হিসেবে কাজ করে। এর মাধ্যেমে কাস্টোমার আপনার কোম্পানির তথ্য বেশি বেশি বুঝতে পারে। প্রডাক্ট সম্পর্কে গবেষনা করতে পারে এবং তার পর তারা সিদ্ধান্ত নিতে পারে পরবর্তিতে আপনার সাথে তাদের কাজ চালিয়ে যাবে কিনা। আপনি যদি ছোট ব্যাবসায়ি হন আপনার অনুধাবন করা প্রয়েজোন যে একটি ওয়েব সাইট থাকা মানে ব্যায়বহুল বিলাষিতা বা অসার প্রচেষ্টা নয়।এটি অত্যান্ত সাশ্রয়ী মূল্যের হতে পারে আপনার প্রতিষ্টানের এটি একটি মৈালিক যন্ত্র যেটি প্রতিটা প্রতিষ্টানেরই প্রয়োজন।

২.একটি ওয়েবসাইট হাতে পারে আপনার কোম্পানির মার্কেটিং এর অত্যান্ত নির্ভরযোগ্য বস্তু। আপনার বিজনেস কার্ড তৈরি বা বিজ্ঞাপন এর উপর ব্যায় করার পূর্বে আপনার টাকা ব্যায় করার প্রয়োজন একটি ওয়েব সাইট তৈরি করার ক্ষেত্রে। একটি ওয়েবসাইটই আপনার বিজ্ঞাপনের সকল প্রচেষ্টার নির্ভর যোগ্য মাধ্যোম হিসেবে কাজ করবে। প্রথমে ব্যাবসায়ের বিশদ বর্ননা, পন্যের তথ্য, উপাত্য গুলো আপনার ওয়েবসাইটে রাখুন। তারপর মার্কেটিং এর বিষয়গুলো তৈরি করে তার সাথে আপনার কোম্পানির ওয়েবসাইটের ডোমেই নেইম যোগ করে দিন। এত করে কাস্টোমার আপনার ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আপনার কোম্পানি অতিরিক্ত তথ্য পেয়ে যাবে।

ওয়েবসাইট এর আরও গুরুত্ব দিক সমুহ:

৩. একটি ওয়েবসাইটই আপনার কোম্পানির পন্য বা সেবা বিক্রি করতে পারে। কোম্পানির নতুন নতুন অফার বা নতুন নতুন পন্য শেয়ার এর মাধ্যমে। একটি ওয়েবসাইট আপনার কোম্পানির ডিজিটাল প্রচারপত্র হিসেবে কাজ করবে। একটি ওয়েবসাইট তৈরির অন্যতম সুবিধা হচ্ছে যে আপনার কোম্পানি সম্পর্কে বা কোম্পানির পণ্যের তথ্য সঠিক সময়ে আপডেট  করতে পারছেন। টাকা পরিশোধ করে আপনাকে কোন প্রিন্ট মিডিয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে না।

৪. আপনার পন্য বা সেবার সম্ভাব্য কাস্টোমারকে একটি ওয়েব সাইটই দিতে পারে পূর্ণাঙ্গ গাইডলাইন। একটি ওয়েবসাইট আপনার কোম্পনির ২৪ ঘন্টার একজন স্টাফ হিসেবি কাজ করবে। এটি অসংখ্য কাস্টোমারদের বারংবার প্রশ্নের উত্তর দিয়ে চলছে এমন কি ব্রিক্রির মত প্রক্রিয়াগুলো সমপুর্ণ করছে। ই-কমার্স এবং ক্রয় অপশন সংযুক্ত ওয়েবসাইটগুলোতে কাস্টোমার সরাসরি তাদের পছন্দের পন্য ক্রয় করতে পারছে। আর এভাবেই একটি ওয়েবসাইট ক্রেতা এবং কোম্পানির স্টাফদের কাজকে সহজ করে তুলছে।

৫. একটি ওয়েবসাইট আপনার কোম্পানির নতুন নতুন কাস্টোমরদের সাথে সংযোগ স্থাপনে সহায়তা করে। যদিও ইতিমধ্যে আপনার প্রতিষ্টিত কাস্টোমার বেস থাকতে পারে।তারপরও একটি ওয়েবসাইট নতুন নতুন কাস্টোমার সৃষ্টি করার ক্ষেত্রে সফলতার সাথে কাজ করে যারা পুর্বে আপনার কোম্পানি সাম্পর্কে কিছুই জানত না। বর্তমানকালে যখনই কোন লোক কোন সমস্যায় পড়ে বা কোন কিছু জানার প্রয়োজন পড়ে তারা ইন্টারনেটের দারস্থ হয়। তারা তাদের প্রত্যাশিত জিনিসগুলো খুজতে থাকে। আর এক্ষেত্রে যদি আপনার ওয়েবসাইটে তার প্রত্যাশিত জিনিসগুলো থাকে তাহলে সে খুব সহজেই আপনার সাইটে ঢুকে পরবে। এভাবেই ওয়েবসাইটি আপনার কোম্পানিকে কাস্টোমরদের কাছে উপস্থাপন করবে এবং নতুন নতুন কাস্টোমার তৈরি করতে সাহায্য করবে।

নিচের পয়েন্ট গুলও দেখতে পারেন:

৬. লোকাল ব্যাবসায়িদের জন্যও একটি ওয়েবসাইট হতে পারে বিশাল সহায়ক। ওয়েবসাইট সম্পর্কে প্রচলিত একটি ভুল ধারনা আছে যে ওয়েবসাইট শুধমাত্র  বিশ্বব্যাপী কর্পোরেশনের জন্য। সত্যিকার অর্থে, একটি ওয়েবসাইট সহায়ক হতে পারে লোকাল ব্যাবসায়িদের জন্যও। বস্তুত পক্ষে, স্থানিয়দের সাথে সংযোগ স্থাপন করার জন্য এটা বিশাল ভুমিকা পালন করে। একটা হিসেবে দেখা গেছে আমেরিকার ৭০ ভাগ লোক তাদের স্থানীয় পন্য কেনা কাটার জন্য তারা ইন্টারনেট ব্যবাহার করে থাকে। সার্চ ইন্জিন সব সময়ই তার সার্চের রেজাল্ট দেখায় স্থান অনুসারে। যেমন আপনার জুতা কেনার প্রয়োজন কিন্তু আপনি জানেন না আপনার আশেপাশে কোথায় জুতার দোকান আছে এক্ষেত্রে আপনি গুগোলে সার্চ দেন এভাবে “shoe stores near me,” তাহলে দেখবেন গুগোল আপনাকে অবশ্যই আমেরিকার জুতার দোকান দেখাবে না যদিনা আপনি আমেরিকার বাসিন্দা হন। আপনাকে অবশ্যই আপনার কাছাকাছি যে জুতার দোকান আছে সেটাই দেথাবে। তাহলে অনেকটা পরিকস্কার হয়েছেন যে ছোট ব্যাবসায়িদের জন্যও অনলাইনে পণ্য উপস্থাপন করার বিশাল উপকারিতা রয়েছে।

৭. একটি ওয়েবসাইট বারাতে পারে আপনার কোম্পনির বিশ্বাসযোগ্যতা। যেটা খুজে পাওয়া যায় না সেটার কখনোই গুরুত্ব থাকে না। আপনার যদি প্রতিষ্ঠিত অনলাইন পরিচিতি না থাকে, তাহলে কাষ্টোমার আপনার কোম্পানিকে কখনোই খুজে পাবে না। আপনার কোম্পানি যদি সার্চ ইন্জিনে না দেখায় তা হলে এটি হবে আপনার কোম্পানির বিশ্বাসযোগ্যতা হারানের দ্রুততম উপায়। এটি আপনার কোম্পানিকে পেছনে ফেলে দিবে,অবিশ্বাসযোগ্য করে তুলবে। এমনকি আপনি যদি মৌখিক মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে অনেক দক্ষ হন। তারপরও অন্যের প্রচারনা থেকে হারিয়ে যাবেন। সন্তুষ্টিত কাষ্টোমার খুব দ্রতই শেয়ার করবে।